deshbangla71news.com
  • Home
  • বিনোদন
  • “আমার একটাই চাওয়া দর্শক-শ্রোতারা যাতে বেশী বেশী বাংলা গান শুনে।”-পুষ্পিতা
বিনোদন

“আমার একটাই চাওয়া দর্শক-শ্রোতারা যাতে বেশী বেশী বাংলা গান শুনে।”-পুষ্পিতা


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মিষ্টি কণ্ঠস্বর নিয়ে সংগীতাঙ্গনের পরিচিত মুখ নুজহাত সাবিহা পুষ্পিতা। ২০১৫ সালে ‘চ্যানেল আই’য়ের ক্ষুদে গানরাজ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে নজর কাড়ানোর মধ্য দিয়ে একজন সংগীত শিল্পী হিসেবে পদচারণা শুরু হয় তার। তারপর ধীরে-ধীরে বিভিন্ন চ্যানেলে কিংবা প্রোগ্রামে গান গেয়ে সংগীতাঙ্গনের একজন পরিচিতি মুখ হিসেবে নিজেকে তুলে ধরতে সক্ষম হন পুষ্পিতা। বেশ কয়েকটি নিজের মৌলিক গান নিয়েও কাজ করছেন তিনি।

তার ক্যারিয়ার এবং সাম্প্রতিক ব্যস্ততা নিয়ে কথা হয় দেশবাংলার সাথে।
পুষ্পিতার সাথে দেশবাংলার কথা হলে নিজের ব্যস্ততা ও নানান বিষয় নিয়ে কথা বলেন তিনি। নিজের ব্যস্ততা সম্পর্কে তিনি বলেন,” গানের মধ্য দিয়েই আছি। স্টুডিও রেকর্ডিং ও টিভি প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যস্ত আছি। সামনে আমার বেশ কয়েকটি গান প্রকাশিত হবে সেগুলো নিয়ে আছি আপাতত।” স্পেশালি আপনার ঈদের কোন কাজ আছে নাকি?
“স্পেশালি কাজ বলতে রবিউল ইসলাম জীবনের লেখা এবং মার্সেলের সুর করা ‘জানি তোর সময় নেই’ এই শিরোনামের একটি গান কয়েকদিনের মধ্যে প্রকাশিত হবে। লুৎফর হাসানের সাথে ‘মাটির ফুল’ শিরোনামের আরেকটি ডুয়েট গান যেটা ইশতিয়াক আহমেদের লেখা এবং মার্সেলের সুর করা খুব শীঘ্রই আসতে চলেছে। আরও বেশকিছু গান আসবে।”
‘বৃষ্টির রেলগাড়ি’তে দর্শক সাড়া কেমন পেয়েছেন বা এখনো পাচ্ছেন?
“এটা এমন একটা স্পেশাল গান যেটাতে আমি নিজে গেয়েছি এবং মডেল হয়েছি। দর্শকদের খুব ভালো সাড়া পাচ্ছি। যেখানে যাই ‘বৃষ্টির রেলগাড়ি’ গানের শিরোনাম দেখছি সবার মুখস্ত হয়ে গেছে।”
লুৎফর হাসানের সাথে কাজ করেছেন। কেমন লাগছে সে অনুভূতি?
“ওনার সাথে এটা আমার প্রথম কাজ। ওনার সাথে কাজ করতে আমি বেশ কম্পোর্টেবল ফিল করি। তাঁর লেখনী আমাকে সবসময়ই মুগ্ধ করে। অনেক রুচিশীল কাজ করেন উনি। ওনার সাথে কাজ করে ভালো লেগেছে ।”
নিজের ক্যারিয়ার গড়তে পরিবারের সাপোর্টটা কেমন পাচ্ছেন?
“আমার সবকিছু আসলে পরিবারের জন্য হয়েছে। আমার বাবা-মা অনেক সাপোর্টিভ। আমাকে প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে সাপোর্ট করে গেছেন বলে আমি এতদূর আসতে পেরেছি। শুরু থেকে যেমনটা সাপোর্ট করে গেছেন এখনও তেমনটা করছেন।”
একজন শিল্পী হিসেবে আপনার চাওয়াটা কি?
“আমার চাওয়াটা আসলে অনেক বড়। নিজেকে সেই শীর্ষস্থানে দেখতে চাই যেখান থেকে মানুষ আমার গান শোনা মাত্রই বলতে পারে যে, এটা পুষ্পিতার গান। মানুষের হৃদয়ে স্থান নিতে চাই”
অবসর সময়কে পুষ্পিতা কিভাবে কাজে লাগায়?
“গান শুনি, গান গাই। আসলে গান নিয়েই বেশী সময় দেওয়া হয়।”
সবশেষ, দর্শক-শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে মিডিয়ার মাধ্যমে কিছু যদি বলতেন?
“আমার একটাই চাওয়া দর্শক-শ্রোতারা যাতে বেশী-বেশী বাংলা গান শোনেন। আমাদের দেশে অনেক ভালো ভালো কাজ হচ্ছে,সেগুলো যেন শোনেন। আর আমরা যারা নতুন প্রজন্মের শিল্পীরা আছি তাদেরকে যেন সাপোর্টটা করে।”


Related posts

.

deshbangla71news.com

তরুণদের আইডল এখন ইভান!

Kazi MD Sazzad Hasan

মারা গেলেন মার্কিন অভিনেতা জর্জ সিগাল!

নিজস্ব প্রতিবেদক