deshbangla71news.com
অর্থনীতি

চিংড়িকে কেন হোয়াইট গোল্ড বলা হয়?


মুহাম্মদ আবু আদিলঃ বাংলাদেশে প্রতিবছর অনেক চিংড়ি বিদেশে রপ্তানি হয়। বাংলাদেশে সমুদ্র তীরবর্তী সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক কর্মকান্ড চিংড়ি মাছের চাষ। তাই চিংড়িকে হোয়াইট গোল্ড বলা হয়।

গলদা চিংড়ি চাষ হয় স্বাদু পানিতে এবং বাগদা চিংড়ি চাষ হয় লোনা পানিতে। ১৯৭৬ সালে বাগদা চিংড়ি বাণিজ্যিকভাবে চাষ শুরু হয়।

আশির দশকের বাগদা চিংড়ি রপ্তানি শুরু হয়। খুলনাকে চিংড়ি চাষের জন্য বাংলাদেশের কুয়েত সিটি বলা হয়। বাগেরহাটে চিংড়ি গবেষণা কেন্দ্র অবস্থিত।

বাংলাদেশের সমস্যা গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বেকার সমস্যা। অনেক যুবক চাকরির অপেক্ষায় বসে না থেকে স্বাবলম্বী হয়েছে চিংড়ি চাষের মাধ্যমে। বাংলাদেশ সরকার যদি এ দিকে আরেকটু নজড় দিতো, তাহলে আরো বেশি পরিমাণ চিংড়ি রপ্তানি করা যেত এবং অনেক মানুষের কর্মসংস্থান ও হতো।


Related posts

৬ হাজার টাকা বাড়ল স্মারক স্বর্ণমুদ্রার দাম

deshbangla71news.com

পরীক্ষামূলক সম্প্রচার

deshbangla71news.com

আলু পেঁয়াজের বাজারে অভিযান, ১৬ প্রতিষ্ঠানের জরিমানা

deshbangla71news.com