deshbangla71news.com
লাইফস্টাইল

সুস্থ থাকতে প্রতিদিন যে খাবার গুলাে খাবেন


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ খাদ্য মানুষের জীবনের একটি অন্যতম প্রয়োজনীয় উপাদান। বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজনীয় শক্তির যোগান দেয় খাদ্য। সুস্থ থাকার জন্য কি খাবেন তা নিয়ে কৌতূহল থাকাটা তাই স্বাভাবিক।নিজেকে ফিট ও সুস্থ রাখতে প্রতিদিন পাতে রাখুন সবজি, প্রোটিন, ফল, শস্য ও দুগ্ধজাত— এই পাঁচ ধরনের খাবার।
সবজিতেই স্বস্তি, দীর্ঘায়ুর জন্য অনেককেই সবজির দিকে ঝুঁকতে দেখা

দামী খাবার খেলেই আপনি সুস্থ থাকবেন এমন কোন কথা নেই। আমাদের সবাইকে পুষ্টিকর খাবার গুলো বেশি খেতে হবে। রোগ_প্রতিরোধ_ক্ষমতা_বাড়াতে আমাদের কে যে সব খাবার বেশীখেতে হবে। ভিটামিনে_ভরপুর পাবেন যে সকল খাবারে ঃ ফল: কমলা, আনারস, কিউই, লেবু, পেঁপে, পেয়ারা, টমেটো, বেরি, আমলকি, তরমুজ, মিষ্টি আলু, বেদেনা, আপেল।

শাকসবজি: গাজর, বীট, পালং শাক, কুমড়ো, ঢ্যাঁড়স, ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রোকলিঃ, বেগুন, ক্যাপসিকাম
লাউ শাক, কচু শাক, পালংশাক, পুইশাক, লাল শাক সকল প্রকার সবুজ শাক।

বাদাম_জাতীয়: কাজুবাদাম, কাগজি বাদাম, আখরোট, চিনাবাদাম।তরল_জাতীয়: তরল জাতীয় খাবার আড়াই থেকে তিন লিটার( বিশুদ্ধ পানীয় জল, নারকেলের জল, ভিটামিন সি যুক্ত ফলের রস, দুধ বা বাটার দুধ, ইত্যাদি)

এছাড়াও গ্রিন টি, দই, মধু, হলুদ, আদা, রসুন, কালোজিরা, কুমড়া বীজ, মাশরুম, অলিভ অয়েল ছোট মাছ, মাছ, মাংস ডিম দুধ ইত্যাদি।
খাবারেই আপনাকে রোগ হতে রক্ষা করতে পারে আল্লাহর রহমতে। আল্লাহর এক একটা নেয়ামতের গুনাগুন লেখে শেষ করার মতন না।
আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহু আকবার।

কিছু করণীয় ঃ কখন ও পেট ভরে ভাত খাবেন না, শাক শবজি বেশি খাবেন। শীতের সময় বিয়ে হয় বেশি বিয়ের দাওয়াত পেলেই গলা পর্যন্ত খাওয়া হতে বিরত থাকুন । শীতকালীন বিষন্নতা থেকে মুক্ত থাকতে চাইলে;ঠান্ডা যেন না লাগে সেদিকে বিশেষ সতর্ক থাকুন। বিশেষ করে ধুলো, ধোঁয়া এবং স্যাঁতসেতে পরিবেশ এড়িয়ে চলুন।

শিশুদের এতবেশি গরম কাপড় পরাবেন না যে ঘেমে গিয়ে বুকে ঠান্ডা বসে যায়। মনকে প্রফুল্ল রাখতে, উজ্জ্বল রংগের পোষাক পরুন, হালকা সুগন্ধি ব্যবহার করুন, ঘরে টাটকা ফুল সাজিয়ে রাখুন।

যতটা সম্ভব রোঁদের তাপ লাগান নিয়মিত।
তাজা শাক সব্জি, ফলমূল এবং কম মশলাযুক্ত খাবার খান। ভাজাভুজি, প্যাকেটজাত খাবার এবং বোতলের পানীয় একেবারে খাবেন না।

সুযোগ পেলেই খোলা হাওয়ায় ঘুরে বেড়ান, ঘরে বন্দী থাকবেন না। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন, সুস্থ থাকার জন্য, নিয়মিত একটা নিয়ম মতন চলুন।
সাধ্য মতো এমন কিছু করুন যাতে মন ভাল থাকে।
নিজেকে ভালোবাসুন এবং অন্যকেও।

অধিকাংশ শারীরিক অসুস্থতার মূল কারন মানসিক সমস্যা, তাই সুস্থ থাকতে হলে মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন হোন। প্রয়োজনে অভিজ্ঞ কাউন্সিলিং সাইকোলজিষ্টের পরামর্শ নিন। আলোকিত হোন, আলো ছড়ান!


Related posts

বয়স আটকে রাখার ৫ উপায়

নিজস্ব প্রতিবেদক

সারা বছরই প্রয়োজন বাড়তি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

মানুষ কেন ভোগান্তিতে পড়ে?

নিজস্ব প্রতিবেদক