1. faolimited01753@gmail.com : Fao Limited : Fao Limited
  2. admin@deshbangla71news.com : deshbangla71news.com :
  3. artaimoon@gmail.com : AR Taimoon : AR Taimoon
  4. kazimdsazzadhasan@gmail.com : Kazi MD Sazzad Hasan : Kazi MD Sazzad Hasan
  5. partspermillion01@gmail.com : MD Rakib : MD Rakib
কীভাবে বুঝবেন আপনি গলার ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে যাচ্ছেন? - deshbangla71news.com
রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৯:০৯ অপরাহ্ন

কীভাবে বুঝবেন আপনি গলার ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে যাচ্ছেন?

ওমর ফারুক মিহান
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

গলার ক্যান্সার হচ্ছে মাথা এবং ঘাড়ের এক ধরণের ক্যান্সার, যার মধ্যে আছে গলার বিভিন্ন স্থানে কোষগুলির এক অনিয়ন্ত্রিত বাড়বৃদ্ধি। গলার যে স্থান আক্রান্ত তার উপর নির্ভর করে গলার ক্যান্সারের বিভিন্ন নাম থাকতে পারে।

যেমন:হাইপোফেরেঞ্জিয়াল ক্যান্সার, ল্যারেনজিয়াল ক্যান্সার, ল্যারেন্ফোফেরেঞ্জিয়াল ক্যান্সার, ন্যাসোফেরেঞ্জিয়াল ক্যান্সার, ওরোফারিঞ্জিয়াল ক্যান্সার, ফ্যারিঞ্জিয়াল ক্যান্সার

কী ভাবে বুঝবেন আপনি গলার ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে যাচ্ছেন?
১/গলার ক্যান্সার এর প্রধান উপসর্গগুলির মধ্যে আছে খাওয়া অথবা গলায় অসুবিধা, গলায় ব্যথা, কথা বলায় অসুবিধা এবং অবিরাম কাশি।

২/গলার ক্যান্সার এর উপসর্গ : ক্যান্সারের অবস্থিতি এবং যে পর্যায়ে এটা আছে তার উপর নির্ভর করে গলার ক্যান্সারের উপসর্গ হয়ে থাকে।
গলার ক্যান্সারের গোড়ার দিকের উপসর্গগুলির মধ্যে রয়েছেঃ

যেমন:
*পরিস্কারভাবে কথা বলায় অক্ষমতা
*দীর্ঘসময় ধরে কাশি।
*একটা যন্ত্রণাযুক্ত গলা।
*গলায় ব্যথা।
*গলায় অসুবিধা।
*গলায় পিণ্ড (ফোলা)।
*হঠাৎ ওজন কমা।
*চোখ, চোয়াল এবং গলায় স্ফীতি (ফোলাভাব)।
*থুথুতে রক্ত।
*কানে ব্যথা।
*কানের মধ্যে ঝনঝন করে বাজার শব্দ।
*গলায় কোনকিছু আটকানোর সংবেদন।
*সাধারণ গলার সংক্রমণগুলির উপসর্গগুলির সাথে এইসমস্ত উপসর্গগুলি বেশির ভাগ সময় গুলিয়ে যায়। যাই হোক, গলার ক্যান্সার দীর্ঘদিন ধরে চলা উপসর্গগুলির কারণস্বরূপ হয়, যা আরও স্পষ্টভাবে প্রকাশ পায় তখনই ক্যান্সার বৃদ্ধি পায়।

কেন হয় গলায় ক্যান্সার?
যেমন: বয়স, লিঙ্গ এমনকি জিন বা বংশগত দুর্বলতা একজন ব্যক্তিকে গলার ক্যান্সারের লক্ষণ প্রকাশ পাওয়ার প্রতি প্রবণ করে তোলে। তামাকের ব্যবহার এবং অত্যধিক মদ্যপানও গলার ক্যান্সারের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত।

কী ভাবে প্রতিরোধ করতে সাহায্যে করে?
প্রতিরোধ হচ্ছে প্রধান ব্যাপার: অ্যালকোহল এবং তামাকের মত বিপজ্জনক উপাদানগুলি এড়িয়ে চলা হলো যেকোন ধরণের গলার ক্যান্সার এড়ানোর প্রধান উপায়।

কী ভাবে সনাক্ত করবেন গলায় ক্যান্সার?
গলার ক্যান্সার একটা শারীরিক পরীক্ষা, রক্ত পরীক্ষা, ইমেজিং (ছবি তোলা) পরীক্ষা এবং বায়োপ্সির সাহায্যে সনাক্ত করা যেতে পারে।

যদি ক্যান্সার প্রথম সূত্রপাতেই সনাক্ত হয় বেঁচে থাকার অনেক বেশি সম্ভাবনা থাকে।

চিকিৎসা :
গলার ক্যান্সারের অবস্থান, ধরণ এবং আকারের উপর নির্ভর করে চিকিৎসার বিকল্পগুলির মধ্যে রয়েছে যেমন:

*রেডিয়েশন থেরাপি:
রেডিয়েশন থেরাপি ক্যান্সারের জন্য গ্যামা রশ্মির মত রশ্মি নিয়ন্ত্রিত মাত্রায় (ডোজ) নির্দিষ্ট অঞ্চলগুলিতে ক্যান্সার কোষগুলি নিশানা করা এবং ধ্বংস করার জন্য ব্যবহার করে।

*কেমোথেরাপি:
কেমোথেরাপি কিছু বিশেষ ওষুধের ব্যবহার সামিল করে, যা ক্যান্সার কোষগুলি অপসারণ করতে সাহায্য করে। কেমোথেরাপি প্রায়ই রেডিওথেরাপির সাথে মিলিয়ে ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা হয়।

*অস্ত্রোপচার:
অস্ত্রোপচার প্রক্রিয়ার দ্বারা, টিউমার বার করে দেওয়া যেতে পারে। কোনও টিউমারের থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য, থাইরয়েডের মত অন্যান্য টিস্যু বা অংশগুলি বার করে দেওয়া হতে পারে।

এটা নির্ভর করে কোনও বাড়তে থাকা টিউমারের আকারের উপর। আশেপাশের বর্ণহীন তরলযুক্ত (শ্বেতকণিকাযুক্ত কোষ থাকা) দেহগ্রন্থিগুলিও ক্যান্সারের আরও ছড়িয়ে পড়া রোধ করার জন্য বার করে দেওয়া হতে পারে।

মাল্টিমোডালিটি (বহু পদ্ধতিযুক্ত) চিকিৎসা
এটায় সামিল থাকে যে, অস্ত্রোপচারের পর রেডিওথেরাপি অথবা কেমোথেরাপির ব্যবহার। এটা সাধারণতঃ বড় টিউমারগুলির জন্য প্রয়োগ করা হয়।

রিহ্যাবিলিটেশন (সংশোধন) থেরাপি
ক্যান্সারের মেডিক্যাল চিকিৎসার সাথে রিহ্যাবিলিটেশন (সংশোধন) থেরাপি হাতে হাত মিলিয়ে (একসাথে) চলে। এটার অন্তর্ভুক্ত খাদ্যতালিকা, কথা বলা এবং মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সহায়তা। পরামর্শদাতা, সামাজিক কর্মী এবং মনোবিদরা কঠোর পরিশ্রান্তিকর ক্যান্সার চিকিৎসার মধ্য দিয়ে যাওয়ার মানসিক চাপ থেকে সেরে ওঠায় একজন ব্যক্তিকে সাহায্য করতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত