deshbangla71news.com
নিজস্ব প্রতিবেদক

হারানো শহর আটলান্টিস: স্রেফ পৌরণিক কাহিনি নাকি বাস্তবিক!


 

আটলান্টিস! জগদ্বিখ্যাত গ্রিক দার্শনিক প্লেটো তাঁর লেখা দুটি বই টাইমাউস ও ক্রিটিয়াসে বর্ণনা করেন এই শহরের কথা। তাঁর বর্ণনামতে, পানির নিচে তলিয়ে যায় এই সমুন্নত শহরটি।

প্লেটো আটলান্টিস শহরটিকে একটি উন্নত প্রযুক্তিসম্পন্ন, শক্তিশালী ও সমৃদ্ধ অঞ্চল হিসেবে উল্লেখ করেছেন, যেটি ৯৬০০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দের কাছাকাছি সময়ে একদিন ও একরাতের মধ্যে সমুদ্রগর্ভে নিলীন হয়ে যায়।

অনেকের মতে এই আটলান্টিস শহরটি শুধুই পৌরাণিক কল্পকথা! আবার অন্যদিকে প্লেটোর এই বর্ণনা অনেককেই ভাবাচ্ছে, সত্যিই কি এই শহরটির অস্তিত্ব ছিল, যেটা আমাদের পৃথিবী থেকে হারিয়ে গেছে?

আটলান্টিস রহস্যটা ২,৩০০ বছরের বেশি আগে লেখা সত্ত্বেও আজও বেশ লোকপ্রিয় এক রহস্য।
.
প্লেটোর লেখা গ্রন্থদ্বয় অনুসারে সমুদ্রের দেবতা পোসাইডন আটলান্টিস শহরটি তৈরি করেন। তিনি ভয়ংকর নৌশক্তিসম্পন্ন একটি ইউটোপিয়ান সভ্যতার উত্থান করেন।

এই শহরটির নামকরণ আটলান্টিক মহাসাগর থেকে করা হয়নি বরং পোসাইডনের বড় সন্তান অ্যাটলাসের নামানুসারে শহরটির নামকরণ করা হয়েছে; যদিও অনেকেই মনে করে আটলান্টিক মহাসাগর থেকে আটলান্টিস নামটি এসেছে।

শহরটি পোসাইডন দ্বারা সুরক্ষিত ছিল এবং তাঁর জ্যেষ্ঠ পুত্র অ্যাটলাস এই অঞ্চলটি শাসন করেন। প্লেটোর বর্ণনা মতে, হারকিউলিস স্তম্ভের ঠিক বাইরে জিব্রাল্টার প্রণালি এলাকায় অবস্থিত দ্বীপে ছিল এই শহরের অস্তিত্ব। লিবিয়া ও এশিয়া মাইনরের মিলিত আয়তনের চেয়েও বড় ছিল আটলান্টিস!

আটলান্টিস শহরে ছিল উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার, যা তৎকালীন সময়ে অন্যান্য অঞ্চলগুলোর চাইতে অনেক গুণ বেশি উন্নত ছিল। সৌন্দর্যের দিক দিয়ে যে কাউকে মুগ্ধ করার মতো, সম্পদের দিক দিয়ে বেশ ধনী ছিল, প্রাকৃতিক সম্পদ ছিল ভরপুর আটলান্টিস শহর।

আটলান্টিস শহরটি যে দ্বীপগুলোতে অবস্থিত সেই দ্বীপগুলো সোনা, রূপা ও অন্যান্য মূল্যবান ধাতু এবং বিরল ও বহিরাগত বন্যপ্রাণীতে ভরপুর ছিল। মূল শহরের কেন্দ্র একটি খাল দ্বারা সংযুক্ত এবং দ্বীপটি বেশ কিছু খাল দ্বারা বেষ্টিত যাতে অবাধে জাহাজ চলাচল করতো।

শহরটিতে একটি পোসাইডন মন্দির ছিল। সাংস্কৃতিক দিক দিয়েও বেশ এগিয়ে ছিল আটলান্টিস। আর সামরিকভাবে শক্তিমত্তা ছিল অনেকটা অতুলনীয়। নৌবিদ্যা, জাহাজ চালনায় ছিল সুদক্ষ।

আটলান্টিস এর বাসিন্দারা সমাজ, সংস্কৃতি, প্রযুক্তি ও সামরিক সক্ষমতার দিক দিয়ে উন্নত হওয়ার কারণে তাদের নৈতিকতা হ্রাস পায়। তারা স্রষ্টার আনুগত্য থেকে সরে আসে। আটলান্টিস হয়ে উঠে তৎকালীন সময়ের বিশ্বের প্রমোদ নগরী হিসেবে। আর তারা আগ্রাসী হয়ে ওঠে সাম্রাজ্য দখলের।

বলা হয়ে থাকে বর্তমানে ইউরোপের টাস্কানি শহর থেকে আফ্রিকার মিশর পর্যন্ত তাদের সাম্রাজ্য বিস্তৃত ছিল। এই অমিতাচারের প্রতিফল হিসেবে দেবতারা তাদের উপর ক্রুদ্ধ হয়ে উঠে, এবং শাস্তি হিসেবে একরাত ও একদিনের মধ্যে এই সমৃদ্ধ দ্বীপ শহরটি সমুদ্রগর্ভে বিলীন করে দেয়।


Related posts

পরমাণু অস্ত্রের খরচ জোগাতে ৩০ কোটি ডলার চুরি উ. কোরীয় হ্যাকারদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

রিয়াল মাদ্রিদ এর বড় জয়

Kazi MD Sazzad Hasan

আমের ফুলে স্বপ্ন বুনছেন বাগান মালিকরা।

Kazi MD Sazzad Hasan