deshbangla71news.com
  • Home
  • পড়ালেখা
  • এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আয়োজনে প্রস্তুত বোর্ড
পড়ালেখা

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা আয়োজনে প্রস্তুত বোর্ড


সাকিফুল ইসলামঃ ২০২১ শিক্ষাবর্ষের এসএসসি পরীক্ষার আয়োজনে প্রস্তুত রয়েছে শিক্ষাবোর্ড। চলমান করোনা পরিস্থিতির কারনে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। সর্বশেষ এসএসসি ২০২০ ব্যাচ পরিক্ষা দিয়েছিল। এরপর আর খোলা হয়নি স্কুল কলেজ। এর মধ্যে ২০২০ এইচএসসি পরীক্ষার্থীদেরকে অটোপ্রমোশন দেওয়া হয়। অন্যান্য শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণীতে উত্তীর্ণ করা হয়।

গত ৩০ মার্চ ২০২১ তারিখে শিক্ষপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রনালয়। কিন্তু করোনা প্রকোপ অধিক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় তা সম্পন্ন হয়নি। এরই মধ্যে চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণোয়ন করে শিক্ষামন্ত্রনালয়।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ৬০ দিন পরে এসএসসি ও ৮০ দিন পর এইচএসসি পরীক্ষা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি। এরই মধ্যে এসএসসি পরীক্ষা আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বোর্ড।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এসএসসি পরীক্ষা নেয়ার লক্ষ্যে প্রশ্নপত্র তৈরি করা হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলললে কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়িয়ে পরীক্ষা আয়োজনের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। তবে যদি করোনার কারণে স্কুল-কলেজ খোলা সম্ভব না হয়, তাহলে বিকল্পভাবে মূল্যায়নের বিষয়েও আলোচনা করা হচ্ছে।

শিক্ষকরা বলছেন, শিক্ষাবোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী তারা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলোকে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়িয়েছেন। স্কুল খুললে খুব অল্প সময় ক্লাস করিয়ে তাদের পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব হবে।

এ প্রসঙ্গে আন্তঃশিক্ষা সমন্বয় বোর্ড সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদ সম্প্রতি বলেন, আমরা পরীক্ষা নিয়েই শিক্ষার্থীদের রেজাল্ট দিতে চাই। সে লক্ষ্যে আমাদের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রাখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে আমরা শিক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলোকে পড়িয়ে পরীক্ষা নিতে চাই। তবে করোনার কারণে যদি সেটি সম্ভব না হয় তাহলে আমরা বিকল্প মূল্যায়ন নিয়েও চিন্তা করছি। সেজন্য একটি কমিটি কাজ করছে। কমিটি আমাদের যে প্রস্তাব দেবে আমরা সেটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেব। এরপর তারা আলোচনা করে বিষয়টি ঠিক করবেন।


Related posts

করোনায় হতাশাগ্রস্ত দেশের ৮৬.৪ শতাংশ শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গণহত্যা ও স্বাধীনতা দিবস পালনের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদের পরেই খুলছে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

Kazi MD Sazzad Hasan